বাবরসা কী এটি কিভাবে তৈরি করা হয়

বাবরসা বা বাবরশা মূলত এক ধরণের মিষ্টির নাম।বর্তমানের বেশীরভাগ মানুষই এই মিষ্টি সম্পর্কে জানেন না।এমনকি অনেকে এই মিষ্টির নামই শোনেন নি।
বাবরসা কী এটি কিভাবে তৈরি করা হয়


আপনারা হয়ত অনেক জায়গায় খুজেও বাবরসা সম্পর্কে তেমন কোন তথ্য পাননি।বাবরসা সম্পর্কিত সকল তথ্য।

ভূমিকা 

বাবরসা বিলুপ্ত প্রায় একটি মিষ্টি।এই মিষ্টি ২৫০ বছরেরও বেশি আগে তৈরি করা হয়।জানা গেছে এই বাবরসা মিষ্টি কোন এক সাহেব কে উপহার দেয়ার জন্যে প্রথম তৈরি করা হয়েছিল।

এই মিষ্টির নাম বাবরসা কেন

১৭৮০ -১৭৫০ খ্রি. এই সময়ে ক্ষীরপাইয়ের লোকজন বর্গিদের আচরনে অতিষ্ঠ হয়ে ওঠেন।এমন সময় এডওয়ার্ড বাবরস নামের এক ইংরেজ সাহেব তাদের বর্গিদের বিরুদ্ধে লড়াই করতে এবং বর্গিদেরকে গ্রাম থেকে তাড়াতে সাহায্য করেছিল।
সেই সময় সাহেবকে উপহার হিসেবে তারা এক নতুন ধরনের মিষ্টি তৈরি করে দিয়েছিল এবং সাহেবের নাম অনুসারে মিষ্টির নাম রাখা হয়েছিল বাবরসা।আবার কারো কারো মতে সম্রাট বাবরকে দিল্লিতে এই মিষ্টি প্রথম খাওয়ানো হয়েছিল তাই এর নাম বাবরসা।

এই মিষ্টির উৎপত্তি কোথায়

ভারতের মেদিনীপুর জেলার ক্ষীরপাই এলাকায় এই মিষ্টি সর্বপ্রথম তৈরি করা হয়েছিল।তাই বলা যায় এই মিষ্টির উৎপত্তি স্থান ক্ষীরপাই।ময়দা,দুধ ও ঘি দিয়ে এই মিষ্টি তৈরি করা হয়।

এই মিষ্টি এত বিখ্যাত কেন

অন্যান্য মিষ্টির তুলনায় এই মিষ্টি বানানোর প্রণালী এবং পরিবেশন পদ্ধতি সম্পূর্ণই আলাদা।তাছাড়া এর স্বাদ ও অনন্য।মূলত এর অনন্য স্বাদ,তৈরির ভিন্ন পদ্ধতি এবং এর পেছনের ২৫০ বছরেরও পুরনো ইতিহাসের কারনে এই মিষ্টি এত বিখ্যাত।তবুও এটি দিন দিন হারিয়ে যাচ্ছে।

বাবরসা মিষ্টি তৈরির উপকরণ

ময়দা
দুধ
ঘি
চিনি/মধু

বাবরসা তৈরির প্রনালী

প্রথমে একটি পাত্রে কয়েক টুকরো বরফ নিয়ে তাতে কিছু পরিমাণ ঘি দিয়ে হাতের তালুর সাহায্যে বেশ কিছুক্ষণ মেশাতে হবে।কিছুক্ষণ পরে বরফ গলে যাবে এবং ঘি নরম ক্রিমের মতো হয়ে আসবে।এ পর্যায়ে ঘিয়ের সাথে অল্প অল্প করে ময়দা মেশাতে হবে।মেশাতে মেশাতে ঘন হয়ে আসলে এর সাথে ঠাণ্ডা দুধ অল্প অল্প করে মেশাতে হবে।
দুধ মেশানো হয়ে গেলে এতে অল্প পরিমাণে ঠাণ্ডা পানি মেশাতে হবে।এই মিশ্রণ খুব বেশি পাতলা বা খুব বেশি ঘন হবে না,মাঝারি ঘনত্বে থাকবে।সবশেষে এতে এক চামচ পরিমাণ লেবুর রস মিশিয়ে নিতে হবে।এবার একটি কড়াইতে ছাঁচ বসিয়ে পরিমাণ মত তেল দিয়ে অল্প অল্প করে ময়দার মিশ্রণ টি দিতে হবে।একবারে দেয়া যাবে না,কারন এতে বাবরসা অধিক মোটা এবং নরম হয়ে যাবে।ফলে খেয়ে বাবরসার আসল স্বাদ পাওয়া যাবে না।
তাই অল্প অল্প করে সময় নিয়ে মিশ্রণ ঢেলে এই মিষ্টি তৈরি করতে হবে।একইভাবে সবগুলো মিশ্রণ দিয়ে বাবরসা বানানো হয়ে গেলে সেগুলো একপাশে রেখে চিনির রস বানিয়ে নিতে হবে।এরপর এটিকে খাওয়ার সময় চিনির রস অথবা মধু উপর থেকে ছড়িয়ে পরিবেশন করলেই একদম খাওয়ার জন্য তৈরি আমাদের বাবরসা মিষ্টি।
Previous Post
No Comment
Add Comment
comment url